বিবর্তনের পথ ধরে

বন্যা আহমেদ

রঙ্গীন প্লেট – ০৪

গত শতাব্দীতেই বিবর্তনবাদকে জীববিজ্ঞানের মূল শাখা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। ডারউইন এই। বিবর্তন তত্ত্ব প্রস্তাব করছিলেন প্রায় দেড়শাে বছর আগে। তার আগে এবং পরে, ভুত্বকের বিভিন্ন স্তরে। হাজার হাজার প্রজাতির ফসিলের সন্ধান পাওয়া গেছে, কিন্তু এখন পর্যন্ত এমন একটাও ফসিল পাওয়া যায়নি যা প্রাণের বিবর্তনের ধারাবাহিকতার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেয়।

img-9
সাড়ে ছয় লাখ বছর আগের আমােনাইটের ফসিল (উপরে)।
img-10
২০০৪ সালে চীনে এক প্রত্নতত্ত্ববিদকে মাটি খুঁড়ে ডায়নােসরের ফসিল বের করতে দেখা যাচ্ছে।

img-11

লুসির সন্তানঃ আশির দশকের প্রথম দিকে যখন ৩২ লক্ষ বছরের পুরনাে Australopethicus afarensis-এর প্রায় সম্পুর্ন ফসিলটি পাওয়া যায় তখন বিজ্ঞানীমহলে রীতিমত হইচই পড়ে গিয়েছিল। একেই সেই বিখ্যাত ‘লুসি’ নামে অভিহিত করা হয়, যার মধ্যে মানুষ এবং বনমানুষ উভয়ের বৈশিষ্ট্যই বিদ্যমান ছিল। ২০০৬ সালে বিজ্ঞানীরা একই প্রজাতির ৩৩ লক্ষ বছরের পুরনাে তিন বছরের শিশুর ফসিল খুঁজে পেয়েছেন। এই প্রথম এত ছােট শিশুর এত পুরনাে এবং সম্পূর্ণ ফসিল পাওয়া গেছে বলে বিজ্ঞানীমহলে এ নিয়ে উত্তেজনার সীমা পরিসীমা নেই। ফসিলটির পায়ের হাড়, হাটুর জয়েন্ট, ছােট আঙ্গুলগুলাে, দাঁত বা মস্তিষ্কের আকার ও গঠনের অনুপাত থেকে আমরা আমাদের পূর্বপুরুষদের সন্তানধারণ, লালন পালন এবং শারীরিক বৃদ্ধি এবং বিকাশ সম্পর্কে গভীর ধারণা লাভ করতে পারবাে।

 


 বিবর্তনের পথ ধরে

শেয়ার করুন —
0 0 votes
Post Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
মন্তব্য করুনx
()
x
Scroll to Top
১ম অধ্যায়

২য় অধ্যায়

৩য় অধ্যায়

৪র্থ অধ্যায়

৫ম অধ্যায়

৬ষ্ঠ অধ্যায়

৭ম অধ্যায়

৮ম অধ্যায়

৯ম অধ্যায়

১০ম অধ্যায়

১১ম অধ্যায়

পরিশিষ্ট
রঙ্গীন প্লেট

বিবর্তন সম্পর্কে প্রচলিত ভুল ধারণাগুলো

গ্রন্থ আলোচনা