মানুষের ইতিহাস

অনুবাদ

০০. ভূমিকা – ইতিহাসের দিনলিপি

কৃতজ্ঞতা

একটা দীর্ঘ সময় ধরে একটা কিছুর পিছনে শ্রম দিয়ে যেতে কাছের মানুষদের অনুপ্রেরণাটা খুব বেশী প্রয়োজন হয়। সে দিক থেকে আমরা সৌভাগ্যবান। বন্ধুবান্ধব, বড়

মানুষের ইতিহাস- ইউভ্যাল নোয়াহ হারারিভাইবোন, সহকর্মী, পরিবার – উৎসাহের কমতি ছিল না কোন। সময়ে অসময়ে, চায়ের কাপের আড্ডায় কিংবা স্কাইপ কলে, অজস্র সময় ধরে আলোচনা সমালোচনার সঙ্গী যারা, বার বার রিভিউ করে ভুলত্রুটি ধরিয়ে দিয়ে বাঁচালেন যারা, হতাশার তলানিতে ঠেকে যাওয়ার সময়গুলোতে উৎসাহ দিয়ে এগিয়ে আসলেন যারা – তাদের প্রতি সীমাহীন কৃতজ্ঞতা। অগণিত শুভাকাঙ্ক্ষীদের মধ্যে কিছু নাম উল্লেখ না করলেই নয়ঃ

  আফরীন হোসেন
আশিকুর রহমান মুশফিক
মিরফাত শারমিন
রাশিদুল হাসান সৈকত
তাসকিনুর হাসান সাজিদ
বেনজামিন বাশার
শহিদুল ইসলাম
দেবব্রত দাস রবিন
আতিকুর রহমান স্বাধীন

ইতিহাসের দিনলিপি

 

সময়কাল কী ঘটেছিলো

১৩৫০ কোটি বছর – পদার্থ এবং শক্তির উদ্ভব। পদার্থবিদ্যার সূচনা। পরমাণু এবং অণুর উৎপত্তি। শুরু হলো রসায়নবিদ্যার।

৪৫০ কোটি বছর – তৈরী হল ‘পৃথিবী’।

৩৮০ কোটি বছর – প্রাণের আবির্ভাব। জীববিদ্যার সূত্রপাত।

৬০ লক্ষ বছর – মানুষ এবং শিম্পাঞ্জি দুজনের সর্বশেষ পূর্বপুরুষকে দেখা যায়।

২৫ লক্ষ বছর – আফ্রিকায় আদি মানুষের বিকাশ লাভ। পাথরের হাতিয়ারের উদ্ভাবন।

২০ লাখ বছর – মানুষ আফ্রিকা থেকে ইউরেশিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। মানুষের বিভিন্ন প্রজাতির আবির্ভাব।

৫ লাখ বছর – ইউরোপ এবং মধ্য প্রাচ্যে নিয়ান্ডার্থাল মানুষ বিকাশ লাভ করে।

৩ লাখ বছর – প্রাত্যহিক কাজে আগুনের ব্যবহার।

২ লাখ বছর – পূর্ব আফ্রিকায় আধুনিক মানুষের বিকাশ।

৭০ হাজার বছর – বুদ্ধিভিত্তিক বিপ্লব – ইতিহাসের শুরু: আধুনিক মানুষ আফ্রিকা থেকে বের হয়ে চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে।

৪৫ হাজার বছর – মানুষ অষ্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী আবাস গড়ে। সেখানকার আগের সমস্ত প্রাণিকুলকে ধ্বংস করে ফেলে।

৩০ হাজার বছর – নিয়ান্ডার্থালের বিলুপ্তি।

১৬ হাজার বছর – মানুষ আমেরিকায় স্থায়ী আবাস গড়ে তোলে। আমেরিকার পূর্ববর্তী প্রাণবৈচিত্র্য বিলুপ্তির কবলে পড়ে।

১৩ হাজার বছর – ফ্লোরেসিয়েন্সিস মানুষের বিলুপ্তি। আধুনিক মানুষই মানব প্রজাতিগুলোর মধ্যে একমাত্র টিকে থাকা প্রজাতি।

১২ হাজার বছর – কৃষি বিপ্লব। উদ্ভিদ এবং প্রাণীর গৃহপালিতকরণ। মানুষের এক জায়গায় স্থায়ীভাবে বসবাসের সূচনা।

৫ হাজার বছর – প্রথম রাজ্য, রাজত্ব, হস্তলিপি এবং মুদ্রার প্রচলন। বহু-ঈশ্বরবাদী বা বহুদেববাদী (Polytheistic) ধর্মের প্রচলন।

৪২৫০ বছর – প্রথম সাম্রাজ্য – সারগন এর আক্কাদীয় সাম্রাজ্যের শুরু।

২৫০০ বছর – পয়সার উদ্ভাবন – সর্বজনীন মুদ্রা ব্যবস্থার প্রচলন। পারস্য (বর্তমান ইরান) সাম্রাজ্য – “সব মানুষের স্বার্থে” সর্বজনীন রাজনৈতিক ব্যবস্থা। ভারতে বৌদ্ধ ধর্মের প্রসার – “জগতের সমস্ত প্রাণী দুঃখ-কষ্ট থেকে মুক্তি পাক” এই সর্বজনীন সত্যে আস্থা।

২ হাজার বছর – চীনে হান সাম্রাজ্যের সূচনা। ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে রোমান সাম্রাজ্যের বিস্তার। খ্রিস্টধর্মের আগমন।

১৪০০ বছর – ইসলামের সূচনা।

৫০০ বছর – বৈজ্ঞানিক বিপ্লব। মানুষ তার অজ্ঞতা বা অনভিজ্ঞতাকে বুঝতে এবং নজিরবিহীন শক্তি অর্জন করতে শুরু করে। ইউরোপীয়রা আমেরিকা আর সাগর জয় করতে শুরু করে। সারা পৃথিবী একটি মাত্র ঐতিহাসিক স্থানে পরিণত হয়। পুঁজিবাদের (Capitalism) উদ্ভব।

২০০ বছর – শিল্প বিপ্লব। পরিবার এবং সম্প্রদায় পরিণত হয় রাষ্ট্র এবং বাজারে। বিপুল পরিমাণ উদ্ভিদ ও প্রাণীর বিলুপ্তি ঘটে এ সময়।

বর্তমান সময় – মানুষ পৃথিবীর সীমা অতিক্রম করেছে। রাসায়নিক অস্ত্র মানুষ জাতির জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রাণীর বৈশিষ্ট্য এখন আর প্রাকৃতিক বিবর্তনের মাধ্যমে নির্ধারিত হচ্ছে না, হচ্ছে মানুষের বুদ্ধিদীপ্ত নকশার (Intelligent design) মাধ্যমে।

ভবিষ্যৎ সময় – আগামীর বুদ্ধিদীপ্ত নকশাই কি মানুষের ভবিষ্যৎ মূলমন্ত্র হতে যাচ্ছে? আধুনিক মানুষের জায়গা কি দখল করে নিবে অতিমানব (Super Humans)?


 মানুষের ইতিহাস

শেয়ার করুন —
0 0 votes
Post Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
মন্তব্য করুনx
()
x
Scroll to Top